• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০১ জুলাই, ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯

শরীয়তপুরে সঠিকভাবে টিসিবির পণ্য পৌঁছতে জেলা প্রশাসকের প্রেস কনফারেন্স


FavIcon
নুরুজ্জামান শেখ, শরীয়তপুরঃ
প্রকাশিত: জুন ২২, ২০২২, ১১:৩০ এএম
শরীয়তপুরে সঠিকভাবে টিসিবির পণ্য পৌঁছতে জেলা প্রশাসকের প্রেস কনফারেন্স
ছবি: সংগৃহীত

ঈদুল আযহা উপলক্ষে শরীয়তপুর জেলায় ৬৬০৩৩ পরিবারের কাছে সঠিকভাবে টিসিবির পণ্য পৌঁছতে জেলায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের নিয়ে এক প্রেস কনফারেন্সের আয়োজন করলেন জেলা প্রশাসক মো: পারভেজ হাসান। 
মঙ্গলবার (২১ জুন) জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ প্রেস কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়।
প্রেস কনফারেন্সে জেলা প্রশাসক মো: পারভেজ হাসান এক প্রেস রিলিজের মাধ্যমে সাংবাদিকদের জানান, বিগত ঈদ-উল-ফিতরের আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে ভর্তির মূল্য প্রায় এক কোটি পরিবারের কাছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনাও কৌশল গ্রহণ করেছে। সে প্রেক্ষিতে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ(টিসিবি)'র মাধ্যমে প্রাপ্ত মালামালসহ জেলা উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে দ্রুততম সময়ের মধ্যে উপকারভোগীদের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। 

তিনি জানান, বিগত পর্বের সর্বমোট ৬৬,০৩৩ জন উপকারভোগীর এ পর্বেও টিসিবির পণ্য ভর্তুকি মূল্যে ক্রয় করতে পারবেন। উপকারভোগীর জেলাওয়ারি বিভাজন সদর উপজেলায় ১৩৫৩০ জন, জাজিরা উপজেলায় ১০,৮৮৯ জন, নড়িয়া উপজেলায় ১১৯৬৫ জন, ডামুড‍্যা উপজেলায় ৫৬৮১ জন, ভেদরগঞ্জ উপজেলায় ১৩৪৬২ জন এবং গোসাইরহাট উপজেলায় ১০,৫০৬ জন।
তিনি আরও জানান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক ইতিমধ্যে ছয়টি উপজেলার সকল ইউনিয়ন ও সকল পৌরসভার জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে ৬৬,০৩৩ জন উপকার ভোগীর তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। বিগত পর্বের মতো এবারও টিসিবির পণ্য সামগ্রী সংরক্ষণের জন্য আংগারিয়া এলএসডি ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের দ্বিতলের জেলা ত্রাণ অফিসের নবনির্মিত গুদামে পণ্যসামগ্রীর সংরক্ষণ করা হবে নিরাপত্তা রক্ষার্থে গুদামগুলোতে সশস্ত্র নিরাপত্তা প্রহরীর নিযুক্ত করা হয়েছে এবং সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। পণ্য প্যাকেজিং এর জন্য টিসিবিও জেলা প্রশাসন শরীয়তপুর এর নাম সম্বলিত পলি ব্যাগ তৈরি করা হয়েছে। এবং ডিলার কর্তৃক পণ্যসামগ্রীর মূল্য পরিশোধ করার জন্য সোনালী ব্যাংক লিমিটেড শরীয়তপুর শাখা একটি চলতি হিসাব খোলা হয়েছে। পণ্য সামগ্রী বিক্রয়ের জন্য শরীয়তপুরের নির্বাহি অফিসারগণ ইতিমধ্যে ক্যালেন্ডার তৈরি করা হয়েছে। বিক্রয় কার্যক্রম সরাসরি তত্ত্বাবধানে জন্য উপজেলা নির্বাহি অফিসার কর্তৃক বণ্টন করা হয়েছে। এছাড়া বিক্রয় কার্যক্রম আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
২২ জুন ডামুড্যা উপজেলার পণ্য বিক্রি করার মাধ্যমে শরীয়তপুরের এ পর্বের বিক্রয় কার্যক্রম শুরু হবে। এরপর একজন উপকারভোগী কার্ড প্রতি দুই কেজি মসুর ডাল, ২ লিটার সয়াবিন তেল,  ১ কেজি চিনি ক্রয় করতে পারবেন। এ পর্বে ডিলাররা নিজস্ব দোকান থেকে পণ্য বিক্রি করতে পারবেন। যে সকল ডিলারদের নিজস্ব দোকান নেই, তারা টিসিবি'র পণ্য বিক্রয় সংক্রান্ত সংশ্লিষ্ট উপজেলা কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত স্থানে পণ্য বিক্রয় করতে পারবে। এরপর জেলা প্রশাসক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এরকম বিশেষ বিশেষ উদ‍্যোগের জন‍্য ধন‍্যবাদ জানান।
প্রেস কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন, শরীয়তপুর জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মো: শামীম হোসেন, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার অভিজিৎ সূত্রধরসহ অন‍্যান‍্য কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, সুধীবৃন্দ প্রমূখ।



Side banner