• ঢাকা
  • শনিবার, ১৯ জুন, ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮

অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল পেপার উৎপাদন করবে সোনালী পেপার


FavIcon
অনলাইন ডেস্ক:
প্রকাশিত: মে ২৪, ২০২১, ১১:২০ এএম
অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল পেপার উৎপাদন করবে সোনালী পেপার

সম্পূর্ণ অটোমেশন (স্বয়ংক্রিয়) পদ্ধতিতে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল পেপার উৎপাদন করবে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সোনালী পেপার অ্যান্ড বোর্ড মিলস লিমিটেড।

দেশের স্টক এক্সচেঞ্জে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন হওয়া সোনালী পেপার নতুন পণ্যটির ইউনিট চালু করতে চীনা কোম্পানি জ্যাঙ্গজিয়াগ্যাং ফাইননেস অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল কোম্পানি লিমিটেডের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করেছে। 

রোববার (২৩ মে) চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সোনালী পেপারের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুছ এবং জ্যাঙ্গজিয়াগ্যাং ফাইননেস অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল-এর পক্ষে দেশীয় এজেন্ট আইবিএন কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহিদুল আলম। 
খাদ্যকে জীবাণুমুক্ত, নিরাপদ ও স্বাস্থ্যসম্মত রাখার বিভিন্ন উপকরণে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল কন্টেইনার বক্স সম্পূর্ণ অটোমেশন পদ্ধতিতে বাংলাদেশে উৎপাদন করতে যাচ্ছে সোনালী পেপার। আর এ কাজে প্রযুক্তিগত সাহায্যের জন্য চীনের বিখ্যাত অ্যালুমিনিয়াম কোম্পানির সাথে এ চুক্তি করেছে সোনালী পেপার। 

দীর্ঘমেয়াদী, ভাল মানের, অত্যন্ত সুনির্দিষ্ট এবং যুক্তিসঙ্গত দামে নকশা প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রযুক্তির মাধ্যমে কন্টেইনারটি আধুনিক প্রক্রিয়াজাতকরণ সম্পূর্ণ করা যাবে এই মেশিনে। 

সম্পূর্ণ অটোমেশন (স্বয়ংক্রিয়) পদ্ধতিতে এই অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল পেপার মেশিনে দৈনিক গড়ে ১ লাখ পিস বক্স উৎপাদন করা যাবে। এর মাধ্যমে সোনালী পেপারের বছরে ২৫ শতাংশ বিক্রি বাড়বে বলে জানান কোম্পানির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুছ।  

উল্লেখ্য, দেশের অন্যতম দক্ষ শিল্পউদ্যোক্তাদের দ্বারা পরিচালিত সোনালী পেপার ১৯৮৫ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ইউনুছ গ্রুপ ২০০৬ সালে কোম্পানিটি অধিগ্রহণ করে। বর্তমানে কোম্পানিটি ‘এ’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করছে। 

রাজধানীর অদূরে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অবস্থিত সোনালী পেপার কারখানায় প্রিন্টিং পেপারসহ বিভিন্ন ধরনের কাগজ উৎপাদন করা হয়। এর বার্ষিক উৎপাদন সক্ষমতা ৩৫ হাজার টন। বর্তমানে কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ১৮ কোটি ৩০ লাখ ২৮ হাজার টাকা। এর মধ্যে উদ্যোক্তাদের শেয়ার রয়েছে ৭২ দশমিক ০৪ শতাংশ।



Side banner