• ঢাকা
  • রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

আ.লীগ ক্ষমতায় এলেই গণতন্ত্র হত্যা করে : মোশাররফ


FavIcon
অনলাইন ডেস্ক:
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২, ০৩:৫৪ পিএম
আ.লীগ ক্ষমতায় এলেই গণতন্ত্র হত্যা করে : মোশাররফ
ছবি: সংগৃহীত

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, এটা সবাই জানে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই গণতন্ত্র হত্যা করে। দেশে লুটপাট হয়। গত ১৪ বছর কীভাবে তারা গায়ের জোরে ক্ষমতায় রয়েছে, এটাও সবাই জানে।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বিএনপির সাবেক স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার আ স ম হান্নান শাহ’র ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, যারা গণতন্ত্র হত্যা করেছে, দেশের মানুষের অধিকার ক্ষুণ্ন করেছে, লুটপাট করেছে, জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছে, ডলার লুটপাট করেছে, তাদের কারণে মানুষ আমদানি করতে পারছে না। অতএব এ সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশের অর্থনীতি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হবে। তাই দেশকে রক্ষা করতে হলে দেশর মানুষকে এ সরকারের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, দেশে একদলীয় শাসন ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। বিএনপির কর্মসূচিগুলোতে ‘জয়বাংলা স্লোগান’ দিয়ে গুলি করছে। তারপরও প্রধানমন্ত্রীর কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই। তিনি নির্দ্বিধায় উচ্চবাচ্য করছেন, অসত্য কথা বলে যাচ্ছেন।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সমাবেশগুলোতে হামলা প্রতিরোধ করতে দলের নেতাকর্মীরা পতাকা হাতে অংশগ্রহণ করছে। প্রতিরোধের প্রয়োজনে পতাকার সেই লাঠি আরও লম্বা করতে হবে। দেশে এতো হত্যাকাণ্ডের পরও সাধারণ মানুষ যেভাবে বিএনপির সমাবেশে সম্পৃক্ত হচ্ছে। এটা বলতেই হয়, আজকে মানুষ ন্যায়ের পক্ষে জেগে উঠেছে, গণতন্ত্রের পক্ষে দাঁড়িয়েছে।

মোশাররফ হোসেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী বিবিসির সাংবাদিককে বলেছেন আগামী নির্বাচনে সুষ্ঠু হবে। কিন্তু তার এ কথা দেশের মানুষ বিশ্বাস করে না। ২০১৪ সালে ১৫৪টি আসন বিনা ভোটে নির্বাচিত হয়েছে। ২০১৮ সালে দিনের ভোট রাতে হয়েছে। দেশে-বিদেশে সবাই এবিষয়টি জানে। তারপরও কীভাবে বলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে দেশে গণতন্ত্রের সুবাতাস বয়।

গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলনের সভাপতিত্বে ও বি জে (অব.) হান্নান শাহ স্মৃতি সংসদের সদস্য সচিব মজিবুর রহমানের পরিচালনায় স্মরণসভায় আরও বক্তব্য রাখেন, বিএনপির স্বেচ্ছাসেবকবিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল, হান্নান শাহের ছেলে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহ রিয়াজুল হান্নান প্রমুখ।



Side banner