• ঢাকা
  • রবিবার, ২৬ মার্চ, ২০২৩, ১২ চৈত্র ১৪২৯

চট্টগ্রাম টেস্টের ফয়সালা পঞ্চম দিনে


FavIcon
স্পোর্টস ডেস্ক:
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৭, ২০২২, ০৭:৫৩ পিএম
চট্টগ্রাম টেস্টের ফয়সালা পঞ্চম দিনে
ছবি - সংগৃহীত

বাংলাদেশের জন্য মিশ্র অনুভূতির একটা দিন। জাকির-শান্তর রেকর্ড উদ্বোধনী জুটি আশা দেখাচ্ছিল। কিন্তু তাদের বিদায়ের পর টানা কয়েকটি উইকেটের পতনে হারের অপেক্ষা কেবল বেড়েছে বলা চলে।

শনিবার (১৭ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিন শেষে দুই দল আছে দুই মেরুতে। জিততে হলে ভারতের যেখানে মাত্র ৪ উইকেটের অপেক্ষা। বাংলাদেশের সামনে তখনো ২৪১ রানের বড় টার্গেট টপকাতে হবে। হাতে আছে আর চার উইকেট। যেখানে স্বীকৃত ব্যাটার হিসেবে আছেন কেবল সাকিব আর মিরাজ। 

একদিন আগেই অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ বলেছিলেন, হয় আমরা জিতব নয়তো ভারত জিতবে। চট্টগ্রাম টেস্টের বাস্তবতাও তেমনটাই বলছে। বাংলাদেশের পক্ষে এই টেস্ট বাঁচানো কতটা সম্ভব সেটি সময়ই বলে দেবে।

জিততে হলে হিমালয় টপকাতে হবে। প্রথম ইনিংসে দেড়শ’ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পর ভারতের দেয়া ৫১৩ রানের টার্গেট অসাধ্যই বলা চলে। তবে এমন টার্গেট তাড়া করতে নেমে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে বাংলাদেশের শুরুটা ছিল স্বপ্নের মতো। ধারাবাহিকভাবে ব্যর্থ শান্ত আর অভিষিক্ত জাকির হাসান মিলে গড়েন টিম ইন্ডিয়ার বিপক্ষে রেকর্ড ওপেনিং জুটি। তারা দুজনে মিলে ২৭৭ বলে ১২৪ রানের জুটি গড়েন।

তবে এরপরই ছন্দপতন। একটু সময়ের জন্য মনোযোগ হারিয়েছিলেন শান্ত। সেটারই মাশুল দিতে হলো তাকে। উমেশ যাদবের বলে খোঁচা মেরে ধরা পড়লেন কিপার রিশভ পন্তের গ্লাভসে। ব্যাটের কানায় লেগে ক্যাচ যায় স্লিপে। সেখানে তালগোল পাকান বিরাট কোহলি। তার হাতে লেগে যায় কিপারের দিকে। মিস করলেন না পন্ত। বাম হাত দিয়ে বল আটকে, ডানহাতে জমান তিনি! ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে শান্ত খেলেছেন ১৫৭ বলে ৬৭ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। 


এদিকে, শান্ত সাজঘরে ফেরার পর খেলতে নেমে আবারও ব্যর্থ ইয়াসির আলি রাব্বি। প্রথম ইনিংসে ব্যর্থতার পর ধারাবাহিকতা ধরে রাখলেন ইয়াসির। আগেরবার উমেশ যাদবের বলে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হয়েছিলেন তিনি। এবার ফিরলেন অক্ষর প্যাটেলের বল ভুল লাইনে খেলে গিয়ে। ১২ বলে ৫ রান করে বোল্ড হয়েছেন তিনি। 

সহযোদ্ধাদের একের পর এক হারিয়েও বিচলিত ছিলেন না অভিষিক্ত জাকির হাসান। অভিষেক টেস্টটা স্মরণীয় করে রাখলেন তরুণ এ ব্যাটার। শক্তিশালী প্রতিপক্ষ ভারতের বিপক্ষে পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে ২১৯ বল মোকাবিলায় শতক হাঁকালেন।

সেই সঙ্গে চতুর্থ বাংলাদেশি হিসেবে অভিষেক টেস্টেই শতরানের নজির গড়লেন তিনি। অভিষেকে প্রথম এই কীর্তি গড়েন আমিনুল ইসলাম বুলবুল। পরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে তার পাশে বসেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তৃতীয় হিসেবে এমন রেকর্ড আবুল হাসানের।

তবে সেঞ্চুরি হাঁকানোর পরপরই সাজঘরে ফিরে গেছেন জাকির। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে ধরা পড়লেন স্লিপে। তবে যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন দৃঢ়তার সঙ্গে ব্যাটিং করে গেছেন। তাকে দেখে মনেই হয়নি অভিষেক টেস্ট খেলতে নেমেছিলেন।

এরপর অক্ষর প্যাটেলের এক ওভারে জোড়া উইকেট হারিয়ে ভীষণ চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। একে একে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক ও সোহান। সেখান থেকে দলকে পথে ফেরানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন সাকিব আল হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজ। উইকেট অক্ষত রেখে নিরাপদে দিন শেষ করেন এ জুটি। 



Side banner