• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১

শাহজাদপুরের নাতিবাবুর দাপটে কাঁপবে বাংলাদেশ


FavIcon
মাসুদ মোশাররফ, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) :
প্রকাশিত: জুন ৯, ২০২৪, ০৫:২৭ পিএম
শাহজাদপুরের নাতিবাবুর দাপটে কাঁপবে বাংলাদেশ

আসছে কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে অনেক পেশাদার ও সৌখিন খামারিরাই তৈরি করে থাকেন বিশাল আকৃতির পশু। নামও দিয়ে থাকেন বিভিন্ন রকমের। সেই রকমই এক বিশাল দানব আকৃতির গরু চার বছর ধরে লালন পালন করেছেন
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার ঘোরশাল নতুনপাড়া গ্রামের মোঃ ঠান্ডু প্রামানিক। ঠান্ডু প্রামানিকের খামারে দিনে দিনে বেড়ে ওঠা দানবাকৃতির গরুটির নামও দিয়েছেন নাতিবাবু। ধারনা করা হচ্ছে আসছে কোরবানিতে বৃহৎ আকারের এই নাতিবাবুর দাপটে কাঁপবে পুরো বাংলাদেশ।
এদিকে ঈদুল আজহার বাকি আর মাত্র এক সপ্তাহ। এরই মধ্যে শাহজাদপুরউপজেলার নিভৃত গ্রামের একটি খামারে বেড়ে ওঠা বিশাল আকৃতির নাতীবাবু এখন আলোচনায় শীর্ষে। লম্বায় সারে নয় ফিট ও উচ্চতায় ছয় ফিট হলস্টেইন-ফ্রিজিয়ান শংকর জাতের এই গরুটি নজর কেড়েছে ক্রেতাদের।
চার বছর আগে শখের বসে গরুটি ক্রয় করেন শাহজাদপুর উপজেলার ঘোরশাল নতুনপাড়া গ্রামের ঠান্ডু প্রামানিক। গরুটির বর্তমান ওজন প্রায় ৪৪ মণ। নিজের বাড়িতে ফার্ম করে সম্পূর্ণ দেশীয় খাবার কাচা ঘাস, খৈল, ভূষি, খড়, সাইলেস ইত্যাদি খাইয়ে হৃষ্টপুষ্ট করা হয়েছে নাতিবাবুকে । গরুটির নাম নাতিবাবু কেন প্রশ্ন করলে ঠান্ডু প্রামানিক বলেন, নাতির মত আদর, যতœ করি বলেই গরুটির নাম নাতিবাবু রেখেছি। এবার ঈদেই বিক্রি করে দিব নাতিবাবুকে। তাই কোরবানি ঈদকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে গরুর ব্যাপারী এসে দেখছে গরুটি। দানবাকৃতির নাতিবাবুর দাম হাঁকানো হয়েছে ১৫ লক্ষ টাকা।
উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগ বড় আকারের গরু পালনকারীদের পাশে থেকে সার্বিক সহযোগিতা করছে বলে জানিয়েছেন শাহজাদপুর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ বিল্লাল হোসেন। বেশীরভাগ স্থানীয়দের দাবি- এবার শাহজাদপুরের নাতিবাবুই হবে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় গরু। এরকম বড় গরু তারা এর আগে বাস্তবে দেখেননি কেউ। তাইতো বিশাল আকৃতির গরুটিকে একনজর দেখতে প্রতিদিন ভীড় জমাচ্ছেন উৎসক মানুষ।


Side banner
Link copied!