• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০১ জুলাই, ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯

তিন ম্যাচে হেরেও বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ড


FavIcon
স্পোর্টস ডেস্ক:
প্রকাশিত: মার্চ ৩১, ২০২২, ০২:২৭ পিএম
তিন ম্যাচে হেরেও বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ড
তিন ম্যাচে হেরেও বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ড

ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ শুরু হয়েছিল হতাশায়। অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে শুরু হয়েছিল বিশ্বকাপ। এরপর আর হারতে হয়নি চারবারের বিশ্বকাপ জয়ীদের। যে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে লিগে হেরেছিল ইংলিশ মেয়েরা, তাদেরই এবার সেমি-ফাইনালে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছে।

ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে ইংল্যান্ডের দেয়া ২৯৩ রান তাড়া করার লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৩৮ ওভারে ১৫৬ রানেই গুটিয়ে যায় প্রোটিয়ারা। ১৩৭ রানের বড় জয়ে ৩৬ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ফাইনালে খেলার টিকিট নিশ্চিত করল।

আগে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১০ রানে ওপেনিং জুটি ভাঙায় বিপাকে পড়ে ইংল্যান্ড। এরপর একপ্রান্ত আগলে রাখেন ড্যানি ওয়েট। ওপেনার টামি বেমন্ট চতুর্থ ওভারে ৭ (১৪) রানে সাজঘরে ফেরার পর অধিনায়ক হিথার নাইটও ফেরেন ১ রান করে। নাট স্কিবার (১৫), অ্যামি জোনসরা (২৮) দ্রুত ফেরায় আরও বিপাকে পড়ে যায় ইংল্যান্ড।

তবে একপ্রান্তে ধৈর্যের পরীক্ষা দিয়ে ওপেনার ড্যানি ওয়েট তুলে নেন সেঞ্চুরি। সোফিয়া ডাঙ্কলেকে নিয়ে ১১৬ রানের জুটি গটে ড্যানি খেলেন ১২৫ বলে ১২ চারে ১২৯ রানের ইনিংস।

ড্যানির বিদায়ের পর ক্যাথরিন ব্রান্ট ৯, ক্যাট ক্রস ০ রানে বিদায় নিলেও সোফিয়া খেলেন ৭২ বলে ৬০ রানের ইনিংস। শেষ দিকে সোফি একলেস্টনের ১১ বলে ২৪ রানের নির্দিষ্ট ওভার শেষে ৮ উইকেটে ২৯৩ রান তুলে ইংল্যান্ড।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ৩ উইকেট নেন সাবনিম ইসমাইল। ২টি করে নেন মারিজান কাপ ও মাসাবাতা ক্লাস। ১ উইকেট নিয়েছেন আয়াবোঙ্গা খাকা।

বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ইংলিশ বোলারদের তোপের মুখে পড়ে প্রোটিয়া ব্যাটাররা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩০ রান করেন মিগনন ডু প্রেজ। এছাড়া ২৮ রান করেন লারা গোডাল। সমান ২১ রান করে আসে সুন লুস, মারিজানে কাপ ও তৃষা চেট্টির ব্যাটে।

ইংল্যান্ডের পক্ষে ৩৬ রান দিয়ে ৬ উইকেট নেন সোফি একলেস্টন। ২ উইকেট নেন আনিয়া ও ১ উইকেট নেন কেট ক্রস।



Side banner